Home বানিয়াচং বানিয়াচংয়ে ফুটবল খেলা নিয়ে সংঘর্ষ, আহত শতাধিক

বানিয়াচংয়ে ফুটবল খেলা নিয়ে সংঘর্ষ, আহত শতাধিক

0
শেয়ার করুনঃ
 রায়হান উদ্দিন সুমন, বানিয়াচং থেকে ॥ বানিয়াচংয়ে ফুটবল খেলা নিয়ে তকবজখানী ও মিনাট গ্রামবাসীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়েছে। তিন ঘন্টাব্যাপী এ সংঘর্ষে উভয়পক্ষের শতাধিক লোক আহত হয়। এর মাঝে তিনজনকে টেটাবিদ্ধ অবস্থায় সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। গতকাল রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায় শুরু হয়ে সংঘর্ষ চলে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত। বানিয়াচং ২নং ইউপির অন্তর্গত আদর্শ বাজারের কাছে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থায় ১৩ জনকে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অপর আহতদের বানিয়াচং স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়।

টেটাবিদ্ধ একজনকে চিকিৎসার জন্য নেয়া হচ্ছে

জানা যায়, এলাকার বয়স্ক খেলোয়াড়দের নিয়ে একটি ফুটবল টুর্ণামেন্টের আয়োজন করেন বানিয়াচং উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও জামায়াত নেতা ইকবাল বাহার খান। ঘটনার দিন মিনাট ও তকবজখানী দলের মধ্যে ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। খেলার একফাঁকে মিনাটের পক্ষের খেলোয়াড় প্রতিপক্ষের জালে একটি গোল দিলে তকবজখানীর সমর্থক এটি হয়নি বলে মিনাটের সমর্থকের সাথে গোল নিয়ে তর্কে লিপ্ত হয়।

ঘটনার সময় বাড়িঘরে আগুনের লেলিখান শিখা 

দুইজনের বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে উভয়পক্ষের সমর্থকরা হাতাহাতিতে লিপ্ত হয়। পরে তাদের পক্ষ নিয়ে মিনাট ও তকবজখানীর লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে বানিয়াচং থানা পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার চেষ্টা করে। একপর্যায়ে পুলিশের এ চেষ্টা ব্যর্থ হয়। শেষ পর্যন্ত বিশিষ্ট আলেমরা এগিয়ে এলে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হয়।

চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের উপচেপড়া ভিড়

এর মধ্যে আশেপাশের কয়েকটি ঘর বাড়িতে কে বা কারা আগুন ধরিয়ে দেয়। আগুনের লেলিহান শিখা চারদিকে দাউ দাউ করে জ্বলতে থাকে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস এসে তা নিয়ন্ত্রণ করে। সংঘর্ষে আহত সুমন মিয়া (২১), রুমান মিয়া (২৮), সেলিম মিয়া (২০), আরাফাত (২৫), মোতাব্বির মিয়া (৩২), আলী আহমদ (৫৭), কামাল মিয়া (২৪), সালাতুল (২৬), লকু মিয়া (২৪), আরজু মিয়া (৩৫), মুকিত মিয়া (৪৫), ইছাক উল্লা (২৮) ও খেলু মিয়া (৪৬) কে বানিয়াচং স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়।

 গুরুতর আহত টেটাবিদ্ধ গউছ উদ্দিন (৪০), শাহিন মিয়া (২০) ও আক্তার মিয়া (৩০) কে সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং রুহুল আমিন (২৫) ও আমির আলী (৩০) কে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

Load More In বানিয়াচং