Home বানিয়াচং জেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল কেন অবৈধ নয় জানতে চেয়ে হাইকোর্টের রুল

জেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল কেন অবৈধ নয় জানতে চেয়ে হাইকোর্টের রুল

0
শেয়ার করুনঃ
 রায়হান উদ্দিন সুমন :   জেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা কেন অবৈধ নয়- এই মর্মে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চ রবিবার এ রুল জারি করেন। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ সচিব,স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব,আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব ও প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে (সিইসি) এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। একইসঙ্গে জেলা পরিষদ আইন-২০০০ এর ৪(২) ধারা এবং জেলা পরিষদ আইন-১৯১৬সালের ১৭(৫) ধারা কেন বাতিল করা হবে না জানতে চেয়ে আরও একটি রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। আদালতে শুনানি করেন রিটকারী আইনজীবি ইউনুছ আলী আকন্দ। রাষ্ট্রপক্ষ ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস। 
ইউনুছ আলী আকন্দ বলেন,৪(২) ধারা ও ১৭(৫) ধারা কেন বাতিল করা হবে না এই মর্মে রম্নল জারি করছেন আদালত। গত ২৯ নভেম্বর জেলা পরিষদ নির্বাচনে স্থগিত ও বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে রিটটি করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবি ইউনুছ আলী আকন্দ। রিটে জেলা পরিষদ আইনের দুইটি ধারা চ্যালেঞ্জ করা হয়। এছাড়া ২০১৬সালে জেলা পরিষদ আইনে যে সংশোধনী আনা হয়েছে তা সঠিক হয়নি এমন যুক্তি দেখিয়ে রিটটি করা হয়েছে। আইনজীবি ইউনুছ আলী আকন্দ আরও বলেন,সংবিধানের ১১ ও ৫৯ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী বাংলাদেশে নির্বাচন হবে সরাসরি জনগনের ভোটে। কিন্তু জেলা পরিষদ আইনের ৪(২) ও ১৭(৫)নম্বর ধারার আলোকে নির্বাচন করা হচ্ছে নির্বাচকমন্ডলীর মাধ্যমে। যা সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। তাই এই তিনটি ধারাকে চ্যালেঞ্জ করে রিট করা হয়েছে।
 গত ২০ নভেম্বর জেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। তফসিল অনুযায়ী আগামী ২৮ ডিসেম্বর পার্বত্য তিনটি জেলা বাদে বাকি ৬১ জেলায় জেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।আইন অনুযায়ী,প্রতিটি জেলায় স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের জনপ্রতিনিধিদের ভোটে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্যরা নির্বাচিত হবেন। প্রতিটি জেলায় ১৫জন সাধারণ ও ৫জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য থাকবেন। ২৫ বছর বয়সী বাংলাদেশের যে কোন ভোটার জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারবেন। তবে তিনি নিজে একজন জনপ্রতিনিধি হলে পদে থেকে প্রার্থী হওয়া যাবে না। 
১৯৮৮সালে সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদের সরকার প্রণীত স্থানীয় সরকার (জেলা পরিষদ) আইনে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানকে সরকার কর্তৃক নিয়োগ দেওয়ার বিধান ছিল,পড়ে আইনটি অকার্যকর হয়ে পড়ে। ২০০০ সালে তৎকালীন আওয়ামীলীগ সরকার নির্বাচিত জেলা পরিষদ গঠনের জন্য নতুন আইন করে। এরপর ২০১১ সালের ১৫ ডিসেম্বর সরকার ৬১ জেলায় আওয়ামীলীগের জেলা পর্যায়ের নেতাদের প্রশাসক নিয়োগ দেয়। অনির্বাচিত এই প্রশাসকদের মেয়াদ শেষেই এই ডিসেম্বরে নির্বাচন হচ্ছে।
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

Load More In বানিয়াচং