Home বানিয়াচং বানিয়াচং -আজমিরীগঞ্জ শরীফ উদ্দিন রোডে নিম্নমানের পাথর দিয়ে কালভার্ট নির্মাণ

বানিয়াচং -আজমিরীগঞ্জ শরীফ উদ্দিন রোডে নিম্নমানের পাথর দিয়ে কালভার্ট নির্মাণ

0
শেয়ার করুনঃ
 নিজস্ব প্রতিনিধি ॥ বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ শরীফ উদ্দিন সড়ক নির্মাণ কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। ওই সড়কে ৭টি কালভার্ট নির্মাণ করার কথা। এর মাঝে নিম্নমানের পাথর দিয়ে ইতোমধ্যে ৫টি কালভার্ট নির্মাণ করা হয়েছে। ফলে কালভার্টগুলোর স্থায়িত্ব নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। সড়কের আমিরখানি খালের ওপর আরসিসি বক্স কালভার্ট নির্মাণ কাজ চলছে। এ কালভার্ট নির্মাণেও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। নিম্নমানের পাথর ব্যবহার করা হচ্ছে। সিডিউল বহির্ভূতভাবে তরিগরি করে খেয়াল খুশিমতো দায়সারা কাজ করা হচ্ছে। জনসম্মুখে এমন মানহীন কাজ করায় স্থানীয় জনসাধারণের মাঝে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় লোকজন জানান, এ কাজের ঠিকাদার প্রভাবশালী হওয়ায় তিনি ইচ্ছেমতো কাজ করে যাচ্ছেন। তাকে কখনও কাজের সাইডে আসতে দেখেননি কেউ। ঠিকাদার প্রতিনিধি বানিয়াচং চানপাড়া এলাকার এক যুবক তার খেয়ালখুশি মত নিম্মমানের পাথর কাজে ব্যবহার করছে। হবিগঞ্জ সওজ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ ৪৫ বছর ধরে হবিগঞ্জ জেলা শহরের সাথে আজমিরীগঞ্জ উপজেলা সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। এই উপজেলাকে সড়ক যোগাযোগের নেটওয়ার্কে আনতে ২০১০ সালে একনেকের সভায় ৭৩ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। চলতি অর্থবছরে এ প্রকল্পের বরাদ্দ বৃদ্ধি পেয়ে ১১৬ কোটি টাকা দাঁড়ায়। এর মধ্যে ৫ কোটি টাকা ব্যয়ে সড়কে ৭টি আরসিসি কালর্ভাট নির্মাণ করা হবে।

কালভার্টগুলোর নির্মাণ কাজ পায় ঢাকার এমএএইচ কন্ট্রাকশন নামে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। স্থানীয় লোকজন জানান, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ইতিমধ্যে ৫টি কালভার্ট নির্মাণ কাজ শেষ করেছে। ওই কালভার্টগুলোতে নি¤œমানের পাথর ব্যবহার করা হয়েছে। গতকাল রবিবার বিকালে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ওই সড়কের বানিয়াচং অংশে আমিরখানি গড়েরখালের ওপর আরসিসি কালভার্ট নির্মাণ কাজ করছে শ্রমিকরা। কালভার্টের উইং ওয়াল ও বেইজ নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে কয়েকদিন আগে। কালভার্টের ছাদ ঢালাইয়ের (কালভার্টের ওপর অংশ) কাজ করছে শ্রমিকরা।

সিডিউলে আছে, ঢালাইয়ের কাজে ভ্ল্টার ভাঙ্গা ১ নম্বর পাথর ব্যবহার করতে হবে। কিন্তু এর পরিবর্তে ভোলাগঞ্জের সারপিন পাথর ব্যবহার করা হচ্ছে। পাথরের রং লালচে ও বালিয্ক্তু। পাথর পানিতে না ধুয়ে ঢালাইয়ের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। কালভার্টের ছাদের ঢালাইয়ের কাজ এক তৃতীয়াংশ সম্পন্ন হয়েছে। ঠিকাদার প্রতিনিধি বানিয়াচং চানপাড়া এলাকার লেচু মিয়া বলেন, জাফলংয়ের পাথর এখন পাওয়া যায় না। তাই ভোলাগঞ্জের সারপিন পাথর ব্যবহার করা হচ্ছে। তবে পাথরের কোয়ালিটি নাকি ভালো। এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ সড়ক বিভাগের সাব-এসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার বাসারুল আলম বলেন, সরজমিন গিয়ে বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। Back

শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

Load More In বানিয়াচং